সিলেটকে হেসেখেলে হারাল খুলনা

সিলেটকে হেসেখেলে হারাল খুলনা
মিরপুরের মাঠে আন্দ্রে ফ্লেচারের তাণ্ডবে উড়ে গেল সিলেট সানরাইজার্স। ঢাকাপর্বের দ্বিতীয় ধাপের প্রথম ম্যাচে ব্যাটে রানের ফুলঝুরি ছোটালেন খুলনার দুই ওপেনার। তাতেই বিফলে গেল মোহাম্মদ মিঠুনের দারুণ ইনিংস। ফ্লেচার-সৌম্যে ভর করে ৯ উইকেটে ম্যাচ জিতে নিল খুলনা টাইগার্স।

সিলেটের দেওয়া ১৪৬ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে খুলনাকে ঝড়ো সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার সৌম্য সরকার ও আন্দ্রে ফ্লেচার। শুরু থেকে খাপছাড়া তরবারির মতো ব্যাট চালাতে থাকেন দুজনই। ব্যাটে চার-ছক্কার ফুলঝুরি ছোটাতে নেমে সৌম্য-ফ্লেচার মোসাদ্দেক সৈকত আর নাজমুল অপুকেই টার্গেট করেন যেন। নাজমুল অপুর পঞ্চম অভারে সৌম্য হাঁকান বিশাল ছক্কা। সে ওভারে দুজন মিলে তোলেন ১৫ রান। ঠিক পরের ওভারে বল করতে আসা মোসাদ্দেকের ওপর ফ্লেচার চালান স্টিমরোলার। ৩ ছয়ে তুলে নেন ২০ রান।
৩১ বলে ৪৩ রান করে নাজমুল অপুর বলে আউট হয়ে যান দীর্ঘদিন থেকে নিজেকে ফিরে পাওয়ার চেষ্টায় থাকা সৌম্য সরকার। অবিশ্বাস্য এক হাফট্রেকারে দ্রুত পুল করতে গিয়ে জুবায়ের লিখনের হাতে ধরা দেন তিনি। উইকেট গেলেও খুলনার খেলায় কোনো ধরনের ছন্দপতন ঘটেনি। ঠিক পরের ওভারেই আবার ২০ রান তুলে নেন ফ্লেচার। এবারের শিকার মুক্তার আলি।

বাকি কাজটুকু ফ্লেচার ও পেরেরা নির্বিঘ্নেই সারেন। ফ্লেচার শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ৪৭ বলে ৭১ রান করে। পেরেরা করেন ৯ বলে ২২ রান। সিলেটের পক্ষে একমাত্র উইকেটটি ৩৯ রানের খরচায় নেন নাজমুল অপু।
এর আগে ব্যাট করে মোহাম্মদ মিঠুনের ৭২ রান ও অধিনায়ক মোসাদ্দেকের ৩৪ রানে ভর করে ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৪২ রান সংগ্রহ করে সিলেট। খুলনার পক্ষে খালেদ ২টি এবং রাব্বী, নাবিল সামাদ ও সৌম্য সরকার ১টি করে উইকেট নেন।