হাতিরঝিলে হয়রানির অভিযোগে আরও ৩১ জন আটক

সংগ্রহীত

হাতিরঝিলে হয়রানির অভিযোগে আরও ৩১ জন আটক

বেড়াতে আসা মানুষদের নানাভাবে হয়রারি করার অভিযোগে হাতিরঝিল লেক ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩১ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার (১ ফেব্রুয়ারি) রাতে তাদের আটক করা হয়।এ সময় একটি মোটরসাইকেল জব্দ করা হ‌য়ে‌ছে।

পুলিশ সদর দপ্তরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি) সোহেল রানা বাংলানিউজকে জানান, সোমবার (১ ফেব্রুয়ারি) বিকেল চারটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত এ অভিযান পরিচালিত হয়। আটকদের মধ্যে পাঁচজনের বিরুদ্ধে গণউপদ্রব ও অহেতুক হৈচৈ করার অপরাধে ডিএমপি অর্ডিন্যান্স অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হয়ে‌ছে। অন্য‌দের শর্তসা‌পে‌ক্ষে তা‌দের অ‌ভিভাবক‌দের জিম্মায় দেওয়া হ‌য়ে‌ছে।

পুলিশ জানায়, সম্প্রতি পুলিশ সদর দপ্তরে মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স শাখা পরিচালিত ফেসবুক পেইজে একজন নাগরিক হাতিরঝিলে বেড়াতে এসে হয়রানির শিকারের বিষয়টি অভিযোগ করেন। তিনি অভিযোগ করেন, হাতিরঝিল এলাকায় অবসরে সময় কাটানোর জন্য আগত বিনোদনপ্রেমীরা কিছু কিশোর মাধ্যমে হয়রানির শিকার হচ্ছেন।  

এরপর বিষয়টি গুরুত্বসহ দেখার জন্য পুলিশ সদর দপ্তর থেকে হাতিরঝিল থানার অফিসার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়।

এর পরিপ্রেক্ষিতে হা‌তির‌ঝিল থানার তাৎক্ষ‌ণিক উ‌দ্যোগ ও তৎপরতায় মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) রাতে হাতিরঝিল এলাকার বিভিন্নস্থনে অভিযান চালিয়ে ১৬ জন কিশোরকে আটক করা হয়। এরপর থেকে ধারাবাহিক অভিযানে হাতিরঝিলে বেড়াতে আসা মানুষকে হয়রানির অভিযোগে এখন পর্যন্ত মোট ১০২ জনকে আটক করা হয়।

বি‌নোদনপ্রত্যাশী মানুষের আনন্দ উদযাপন‌কে নি‌র্বিঘ্ন ও শা‌ন্তিপূর্ণ কর‌তে ও যেকো‌নো প্রকার হয়রা‌নি থে‌কে তা‌দের‌ মুক্ত রাখ‌তে এ ধর‌নের অ‌ভিযান প‌রিচা‌লিত হ‌চ্ছে বলে জানান এআইজি সোহেল রানা।

তিনি আরও বলেন, হাতিরঝিলে অবসর কাটাতে আসা মানুষের বিনোদনকালীন সময় স্বস্তিদায়ক করার লক্ষ্যে বুধবার (২৭ জানুয়ারি) থেকে পোশাকে ও সাদা পোশাকে অতিরিক্ত ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া, মোবাইল পেট্রোল টিমও দায়িত্ব পালন করবে।

এর ফলে এখানে বেড়াতে আসা মানুষের অবসর উদযাপন আরও নিরাপদ হবে বলে মনে করেন পুলিশের এ কর্মকর্তা।