হারল আফগানিস্তান, মন খারাপ ভারতের

হারল আফগানিস্তান, মন খারাপ ভারতের

আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের শেষ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে ৮ উইকেট হারিয়ে ১২৪ রান করে আফগানিস্তান। জবাবে মাঠে নেমে ৮ উইকেট ও ১১ বল হাতে রেখে সহজেই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় নিউজিল্যান্ড। আবুধাবীর এই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে আফগানদের হারে মন খারাপ ভারতের! কারণ এই জয়ের মধ্য দিয়ে পাকিস্তানের পর দ্বিতীয় দল হিসেবে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করলো উইলিয়ামসনের দল, আর বিশ্বকাপ আসর থেকে ছিটকে পড়লো টিম ইন্ডিয়া।

আজ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আফগানিস্তানের এই পরাজয় ১৩৩ কোটি ৯০ লাখ মানুষকে হতাশ করেছে। আজকের ম্যাচে ভারতের ১৩০ কোটি ও আফগানিস্তানের তিন কোটি ৯০ লাখ মানুষের (২০২০ সালের আদম সুমারি অনুযায়ী) চাওয়া ছিলো নিউজিল্যান্ডের পরাজয়, কিন্তু উইলিয়ামসনদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স সেই আশাকে নিরাশায় পরিণত করেছে।

এদিন আফগানদের দেওয়া ১২৫ রানের লক্ষ্যে পৌঁছতে কিউইদের লেগেছে ১৮.১ ওভার। কেন উইলিয়ামসন ৪২ বলে ৪০ ও ডেভন কনওয়ে ৩২ বলে ৩৬ রানে অপরাজিত থাকেন। মুজিব-উর-রহমান ও রশিদ খান একটি করে উইকেট নেন।

এর আগে, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সুপার টুয়েলভের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে সুবিধে করতে পারেনি আফগানিস্তান। নাজিবুল্লাহ জাদরানের দারুণ হাফসেঞ্চুরির পরও নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ১২৪ রানে থামে দলটি।

ব্যাটিংয়ে নেমে অবশ্য শুরুটা ভালো করতে পারেনি আফগান ব্যাটাররা। কিউই বোলারদের তোপে টপঅর্ডারের তিন ব্যাটারই দুই অঙ্কের ঘরে পৌঁছানের আগেই বিদায় নেন। পরে ইশ সোধির বলে বোল্ড হওয়া গুলবাদিন নাইব ১৫ করে ফেরেন।

পঞ্চম উইকেট জুটিতে ঘুরে দাঁড়ায় আফগানিস্তান। মোহাম্মদ নবীকে সঙ্গে নিয়ে ৪৮ বলে ৫৯ রানের পার্টনারশিপ গড়েন নাজিবুল্লাহ জাদরান। তবে দুই ওভারের ব্যবধানে দুজনই আউট হন। টিম সাউদির বলে তাকেই ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়ে ১৪ রান করা নবী। আর ট্রেন্ট বোল্টের বলে বাউন্ডারিতে থাকা জিমি নিশামকে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নমূখী হন জাদরান। বাঁহাতি এই ব্যাটার ৪৮ বলে ৬টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৭৩ করেন।

শেষদিকে খেই হারিয়ে ফেলে আফগানরা। সেই সুযোগে চেপে ধরে নিউজিল্যান্ড বোলাররাও। ফলে কোনোমতে দলীয় ১২০ রান পার করে তারা। নিউজিল্যান্ড বোলারদের মধ্যে বোল্ট সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট পান। ২ উইকেট পান টিম সাউদি।