হ্রদের পানি শুকাতেই দীর্ঘ দিনের পুরোনো গ্রামের অস্তিত্ব পাওয়া গেল

সংগ্রহীত

হ্রদের পানি শুকাতেই দীর্ঘ দিনের পুরোনো গ্রামের অস্তিত্ব পাওয়া গেল

দীর্ঘ দিন ধরে সবাই যেটাকে হ্রদ বলেই জেনে আসছিলো সেখানে ৭০ বছর আগে ছিলো একটি গ্রাম। হ্রদের পানি শুকানেই জেগে উঠল হারিয়ে যাওয়া আস্ত একটি গ্রাম। দু-একজন বৃদ্ধ গ্রামটি সম্পর্কে জানলেও অধিকাংশ মানুষই জানতো না কখনো এখানে কোন গ্রাম ছিলো।

ঘটনাটি ইতালির টাইরোলের। হ্রদের পানির নিচ থেকে এমন আস্ত গ্রাম জেগে উঠায় অবাক এলাকাবাসী। স্থানীয়দের মাঝে পুরোনো এই গ্রামটি নিয়ে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গেছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও ভাইরাল এই গ্রামটির ছবি। অনেকেই ছবি তুলে শেয়ার করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

জানা গেছে, রেসচেন পাসের কাছেই রয়েছে লেক রেসিয়া। ওই লেক থেকে পানি বের করা হচ্ছিল। হ্রদের পানি কমে গেলে তখনই স্থানীয়দের চোখে পড়ে হ্রদের নিচে ডুবে থাকা গ্রামটি। গ্রামটির নাম কিউরন। প্রায় একশো পরিবারের বাস ছিল এই গ্রামে।

১৯৫০ সালে একটি জলবিদ্যুৎ প্রকল্প তৈরি করার সময় বন্যায় গ্রামটি পানিতে তলিয়ে যায়। সে সময় পাশাপাশি দুটো হ্রদকে একসঙ্গে জুড়ে দেওয়ার ফলে কিউরন গ্রামটি পানিতে তলিয়ে যায়। এই গ্রামের বাসিন্দারা গ্রাম ছেড়ে তখন অন্যত্র চলে যান। সেই থেকে গ্রামটি হ্রদের নিচে সবার অগোচরেই ছিল। সূত্র : ইনডিপেনডেন্ট