১৯ স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি: স্বর্ণসহ গ্রেফতার ডাকাতের স্ত্রী

১৯ স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি: স্বর্ণসহ গ্রেফতার ডাকাতের স্ত্রী

ঢাকার আশুলিয়ায় এক রাতে ১৯ স্বর্ণের দোকানে ডাকাতির ঘটনা তদন্তে সংঘবদ্ধ একটি ডাকাত দলের সন্ধান পেয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

ডাকাতিতে সরাসরি জড়িত কাউকে এখনো গ্রেফতার করা না গেলেও এক ডাকাতের স্ত্রীকে লুট হওয়া স্বর্ণ ও টাকাসহ গ্রেফতার করেছে সংস্থাটি।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাতে রাজধানীর বাড্ডা এলাকা থেকে শাহানা আক্তার (২৪) নামে এক নারীকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে লুণ্ঠিত স্বর্ণ বিক্রির নগদ দুই লাখ ৪৪ হাজার ৮৪০ টাকা ও আনুমানিক দুই ভরি স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর মালিবাগে সিআইডি প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান বিশেষ পুলিশ সুপার (এসএসপি) মুক্তা ধর।

তিনি জানান, গত ৬ সেপ্টেম্বর মধ্যরাতে ঢাকার আশুলিয়া থানাধীন ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের নয়ারহাট বাজারে ১৯ স্বর্ণের দোকানে একযোগে ডাকাতি হয়। অজ্ঞাতনামা ৩০ থেকে ৪০ জন সশস্ত্র ডাকাত দলের সদস্যরা স্বর্ণ ও রুপার অলঙ্কার এবং নগদ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। স্বর্ণ ও অর্থ মিলিয়ে আনুমানিক এক কোটি দুই লাখ ৩২ হাজার টাকা লুট করা হয়। এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়।

চাঞ্চল্যকর এ ডাকাতির ঘটনাটি ছায়া তদন্তের ধারাবাহিকতায় বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) রাতে শাহানাকে মধ্য বাড্ডার একটি বাসা থেকে স্বর্ণ ও টাকাসহ গ্রেফতার করা হয়। তার স্বামী মো. আনোয়ার দেওয়ান আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সর্দার।

তিনি দীর্ঘদিন ধরে দেশের বিভিন্ন স্থানে টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও মূল্যবান সামগ্রী ডাকাতি করে তার স্ত্রী শাহানার কাছে জমা রাখতেন। ডাকাতির ঘটনার সরাসরি জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান সিআইডির এসএসপি মুক্তা ধর।